প্রসঙ্গ: রোহিঙ্গা প্রত্যর্পণ

আলহামদুলিল্লাহ, ওয়াসসালাতু ওয়াসসালামু আলা রাসুলিল্লাহ।

 

কথা শুরু করছি আল্লাহ তায়ালার কালাম দিয়ে-

الا لعنة الله على الظالمين

অর্থাৎ, জেনে রেখো, যালিমদের উপর আল্লাহর লা’নত রয়েছে৷ (সুরা হুদ: ১৮)

 

অতঃপর, আমাদের মনে রাখা উচিত যে, আমাদের জীবন ক্ষণস্থায়ী আর পরকালের পরিণাম চিরস্থায়ী। আমাদের জীবন এমনভাবে পরিচালিত করা কোনোভাবেই উচিত হবেনা যদ্দরুন আমাদের পরকাল ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

 

রোহিঙ্গারা ততক্ষণ আমাদের ভাই, যতক্ষণ তারা স্বীকার করছে যে, লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ। যতক্ষণ তারা সালাতকে ফরয মনে করছে। কেউ যদি সালাত পরিত্যাগ করে, তাহলে তাকে ততক্ষণ তাকফির করা হবেনা, যতক্ষণ না সে সালাতের আবশ্যকতাকে অস্বীকার করছে বা সালাত নিয়ে তুচ্ছতাচ্ছিল্য করছে। এছাড়াও তারা পাপকার্য সম্পাদন করার পরও (ফাসিক) মুসলিমই থাকবে, যতক্ষণ না সেটাকে হালাল বলে ঘোষণা করছে। এসকল মূলনীতি অতীতে লিখা হয়ে গিয়েছে সালাফুস সালেহিনদের কলমে। এগুলো পুনরাবৃত্তি করার মাকসাদ হচ্ছে স্মরণ করিয়ে দেওয়া।

 

আমি এরপর কিছু হাদিস স্মরণ করাতে চাইব, সবগুলো হাদিসই সনদ/মতন/অর্থগতভাবে সহিহ এবং বিশুদ্ধ। এসকল ব্যাপারে উম্মাহর উলামায়ে কেরাম পুরোপুরি একমত ছিলেন। কারণ, এগুলো রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের বাণী।

 

عن ابن عباس رضى الله عنهما أن النبي صلى الله عليه وسلم بعث معاذا إلى اليمن، فقال ‏ “‏ اتق دعوة المظلوم، فإنها ليس بينها وبين الله حجاب ‏”‏‏

 

ইবনু ‘আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, নাবি সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন মু‘আয রাদিয়াল্লাহু আনহুকে ইয়ামানে পাঠান তখম তাকে বলেন, মাযলুমের ফরিয়াদকে ভয় করবে। কেননা, তার ফরিয়াদ এবং আল্লাহর মাঝে কোন পর্দা থাকে না। (সহিহ বুখারী, হাদিস নং, ২৪৪৮)

 

একটু ভাবা দরকার, আমরা আমাদের ভাইদের নিরাপত্তা নিশ্চিত না করেই কাফিরদের সামনে পেশ করতে চাচ্ছি। যদি কাফিররা সেভাবেই যুলুম করে, যেভাবে বর্তমানে করে যাচ্ছে অন্য বারো-তেরো লক্ষ মুসলমানের উপর; সেখানে একটুকরো খাবারের জন্য মা-সন্তান পর্যন্ত কাড়াকাড়ি করে। সেখানে গিয়ে আমার এসব নিরাপদ ভাই যদি মাযলুম হবার পর দুয়া করে, ” আল্লাহ! যারা আমাদেরকে এখান পর্যন্ত এনেছে, তাদেরকে জান্নাত দিওনা…” তাহলে আমার জান্নাতের নিশ্চয়তার জন্য আল্লাহর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে মিথ্যাবাদী বানানো ছাড়া উপায় থাকবেনা। (নাউযুবিল্লাহ)

 

আরেকটি হাদিসে এসেছে,

“‏ المسلم أخو المسلم، لا يظلمه ولا يسلمه، ومن كان في حاجة أخيه كان الله في حاجته، ومن فرج عن مسلم كربة فرج الله عنه كربة من كربات يوم القيامة، ومن ستر مسلما ستره الله يوم القيامة ‏”‏‏.‏

 

‘আবদুল্লাহ্‌ ইবনু ‘উমর (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, মুসলমান মুসলমানের ভাই। সে তার উপর যুল্‌ম করবে না এবং তাকে যালিমের হাতে সোপর্দ করবে না। যে কেউ তার ভাইয়ের অভাব পূরণ করবে, আল্লাহ তা‘আলা কিয়ামতের দিন তার বিপদসমূহ দূর করবেন। যে ব্যক্তি কোন মুসলমানের দোষ ঢেকে রাখবে, আল্লাহ কিয়ামতের দিন তার দোষ ঢেকে রাখবেন। (সহিহ বুখারী, হাদিস নং ২৪৪২)

 

স্পষ্ট ভাষ্য। আমরা দুইটি অপরাধ করছি, অথবা তিনটি। যদিও তৃতীয় অপরাধ আমরা স্বীকার করতে অনিচ্ছুক। প্রথমটি হচ্ছে, আমার ভাইয়ের দোষগুলো আমরা বিষদ আকারে গণনা করছি। সেটা নিয়ে গবেষণা করছি। এজন্য নয় যে, আদল বা ইনসাফ প্রতিষ্ঠা করবো। এজন্যও নয় যে, আল্লাহ তায়ালার হুদুদ কায়েম করবো। করছি শুধুমাত্র দুনিয়াতে নিরাপদে থাকার জন্য। দ্বিতীয়টি হচ্ছে, আমরা তাদেরকে যালিমের হাতে সোপর্দ করতে ভয় পাচ্ছিনা। আর তৃতীয় যেটি আমরা মাঝেমাঝে বলেই ফেলি, তবে বিতর্কের সময় এড়িয়ে যাই, তাদের মাঝের দশলাখের মধ্য থেকে দু-তিন হাজার দ্বিন ইসলাম ত্যাগ করেছে বা দশ হাজার চুরি, ডাকাতি বা শরাবের লেনদেন করছে দেখে গণহারে সবাইকেই বলি, তারা তো ইসলাম ছেড়ে দিয়েছে বা তারা আমাদের ভাই না বা তারা তো ডাকাতি করছে, তাই আমরা তাদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে পারবোনা। আল্লাহ তায়ালাও এমন কোনো মানুষের গোষ্ঠির ব্যাপারে অবগত নন, যারা একই সময়ে দুনিয়ায় বসবাস করেছিল আর কেউই পাপ করেইনি। কারণ, আল্লাহ তায়ালা এমন কিছু সৃষ্টি করেননি। তাহলে আমরা কেন রোহিঙ্গাদের থেকে এমনকিছু আশা করছি? আমরা কি নিশ্চিত, তারা চলে গেলে বাংলায় ডাকাতি থাকবেনা, মদ্যপ থাকবেনা বা এনজিও বা মুরতাদরা থাকবেনা। নাকি এটার নিশ্চয়তাই বা দিতে পারব যে, যারা ফাসেকি কার্যক্রম করছে দশলাখ গেলে তারাও সাথেসাথে চলে যাবে? আমাদের লেইম লজিকগুলোর উপর আফসোস!

 

আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে মাযলুমদের বদদোয়া থেকে বেঁচে থাকার তাওফিক দিক।

অন্যান্য মিডিয়ায় আমাকে ফলো করুন:
বারা ইবনুল মালিক আল আনসারি রাদিয়াল্লাহু আনহুর ফ্যান।
Posts created 5

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Begin typing your search term above and press enter to search. Press ESC to cancel.

Back To Top